বিশ্বকাপের ইতিহাসই ভারতের উপর চাপ বাড়াবে, মনে করেন হরভজন সিং

Updated: 15 June 2019 17:30 IST

২০১১তে ভারতের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ের মঞ্চে সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দুই উইকেট নিয়েছিলেন হরভজন।

Pressure On Indian Players Because Of Better Record Against Pakistan, Says Harbhajan Singh
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারত কখনও বিশ্বকাপে হারেনি © এএফপি

ভারত (Indian Cricket Team) কখনও বিশ্বকাপের পাকিস্তানের (Pakistan Cricket Team) বিরুদ্ধে হারেনি। আর সেটাই ২০১৯ বিশ্বকাপে (World Cup 2019) ভারতীয় ক্রিকেট দলের উপর চাপ সৃষ্টি করবে। এমনিতেই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানে মাঠের বাইরের একটা বাড়তি চাপ চলেই আসে দলের উপর। যা সামলেই খেলতে হয় দুই দলকে। ভারতের কাছে সেটাকে দ্বিগুন বলেই মনে করছেন হরভজন সিং (Harbhajan Singh)। ইতিহাস মাথায় নিয়েই খেলতে নামতে হবে ভারতকে। রবিবার ম্যানচেস্টারে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের ম্যাচ খেলতে নামছেন বিরাট কোহলিরা। দুই দলই চাইবে এই ম্যাচ জিতে পুরো পয়েন্ট তুলে নিতে। এ ছাড়া এই ম্যাচ যে জিতবে তাঁর আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বেড়ে যাবে। কিন্তু হরভজনের মতে, বাড়তি চাপ নিয়েই খেলতে নামতে হবে ভারতকে। তিনি বলেন, ‘‘একজন প্লেয়ার হিসেবে সকলেই চাইবে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভাল খেলতে। তাই সেখানে অনেক বেশি চাপ সৃষ্টি হবে। এটা অবশ্য শুধু ভারতীয় প্লেয়ারদের জন্য নয়, পাকিস্তান প্লেয়ারদের জন্যও একই পরিস্থিতি।''

তিনি এর সঙ্গে যুক্ত করেন, ‘‘কিন্তু ভারতীয় প্লেয়ারদের উপর চাপটা অনেকটাই বেশি থাকবে। কারন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আমাদের রেকর্ড খুবই ভাল বিশ্বকাপের আসরে যেটা আমরা বদলাতে চাইব না।''

ভারত-পাকিস্তা‌ন ম্যাচের আগে ওয়াসিম আক্রমের আর্জি, শান্ত থাকুন, এটা যুদ্ধ নয়

হরভজনের মতে, ম্যাচের আগের রাতটা কেউ ঘুমোতে পারবেন না। তিনি জানেন কী কঠিন অভিজ্ঞতা এবং কতটা চাপের বিশ্ব ক্রিকেটের সব থেকে বড় লড়াইয়ের ম্যাচে খেলা। তাই ভারতীয় দলের প্লেয়ারদের তিনি সাবধান করেছেন।

দুই দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিই বার বার খেলার উপর প্রভাব ফেলেছে। যে কারনে এই ম্যাচের উত্তেজনা অন্য সব ম্যাচের থেকে আলাদা। এই বিশ্বকাপের ম্যাচ ঘিরে রবিবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে মাঠে ও গ্যালারিতে যে আবেগের বিস্ফোরণ ঘটবে সেটা সম্পর্কে নিশ্চিত হরভজন।

৩৮ বছরের এই স্পিনার তাঁর ২৩৬টি একদিনের ম্যাচের মধ্যে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলেছেন ১৭বার। তার মধ্যে তাঁর কাছে সব থেকে বড় ম্যাচ অবশ্যই ২০১১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল চণ্ডিগড়ের মাটিতে। 

হরভজন বলেন, ‘‘ওই ম্যাচের স্মৃতি বলছে আমি আগের রাতে ঘুমোতে পারিনি। যদিও আমি খুব চেষ্টা করেছিলাম। আমি শুধু ভাবছিলাম যদি আমরা হেরে যাই তা হলে কী হবে। মাথায় অনেক কিছু ঘুরছিল।'' সব থেকে বেশি তাঁকে ভাবাচ্ছিল মানুষের প্রতিক্রিয়া। সেই সব দৃশ্য ভেবেই তিনি ঘুমোতে পারেননি। 

India vs Pakistan: নজরে থাকবেন ভারতীয় বোলার ভুবনেশ্বর কুমার

‘‘মানুষ রেগে গিয়ে সেই সময় যা ইচ্ছে করতে পারে। ২০০৩ বিশ্বকাপে আমরা একটাই ম্যাচ খারাপ খেলেছিলাম ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হেরেছিলাম তখন মানুষের রাগ দেখেছিলাম। তারা জিনিসপত্র পুড়িয়ে দিচ্ছিল, আমাদের বাড়িতে পাথড় ছুড়ছিল। ওরা আবেগান্বিত হয়ে পড়েছিল বুঝেছিলাম।''

২০১১তে ভারতের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ের মঞ্চে সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দুই উইকেট নিয়েছিলেন হরভজন। তিনি বলেন, ‘‘ম্যাচ জিতেও পরের রাতে আমি ঘুমোতে পারিনি। কারন উত্তেজনার পারদটা এতটাই বেশি ছিল সঙ্গে উচ্ছ্বাস ছিল। এটাই পাকিস্তান ম্যাচ। এটা সেই ম্যাচগুলোর মধ্যে একটি যখন ম্যাচের চাপ ইংল্যান্ড বা নিউজিল্যান্ডের ম্যাচের থেকে বেশ খানিকটা বেশি হয়।''

‘‘দুই দেশের মানুষরাই চায় তাদের দল জিতুক। আর যে হেরে শেষ করবে সেই দেশের সমর্থকরা হতাশ হয়ে পড়েন। এবং তাঁরা নিজেদের মধ্যে থাকেন না। যা বেশ খারাপ।''

(তথ্য এএফপি)

Comments
হাইলাইট
  • পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী হরভজন সিং
  • রবিবার ম্যানচেস্টারে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নামবে ভারত
  • হরভজন নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে জানেন পাকিস্তান ম্যাচের চাপ কতটা
সম্পর্কিত খবর
ভারতের কাছে হেরে আত্মহত্যা করার কথা ভেবেছিলাম: মিকি আর্থার
ভারতের কাছে হেরে আত্মহত্যা করার কথা ভেবেছিলাম: মিকি আর্থার
World Cup 2019: ভারতের কাছে হারের পরে সরফরাজকে ফোন পিসিবি চেয়ারম্যানের
World Cup 2019: ভারতের কাছে হারের পরে সরফরাজকে ফোন পিসিবি চেয়ারম্যানের
রোহিতের সঙ্গে তাঁর ছক্কার তুলনা করায় কী উত্তর দিলেন সচিন তেন্ডুলকর
রোহিতের সঙ্গে তাঁর ছক্কার তুলনা করায় কী উত্তর দিলেন সচিন তেন্ডুলকর
দেশে ফিরে সমালোচনার মুখে পড়তে হতে পারে, দলকে সাবধান করলেন সরফরাজ
দেশে ফিরে সমালোচনার মুখে পড়তে হতে পারে, দলকে সাবধান করলেন সরফরাজ
শোয়েব আখতার সরফরাজকে বুদ্ধিহীন অধিনায়ক বলার পর একহাত নিলেন হাসান আলিকেও
শোয়েব আখতার সরফরাজকে বুদ্ধিহীন অধিনায়ক বলার পর একহাত নিলেন হাসান আলিকেও
Advertisement