লোধা কমিশনের প্রস্তাবনা বদলানোর জন্যে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছে BCCI

Updated: 01 December 2019 16:58 IST

বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদে Sourav Ganguly-র কার্যকালের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

BCCI Seeks Supreme Court Approval To Dilute Lodha Reforms On Office-Bearers
২৩ অক্টোবর বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদের দায়িত্ব নেন Sourav Ganguly © AFP

বিসিসিআইয়ের সভাপতি পদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Sourav Ganguly) কার্যকালের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। জানা গেছে, বোর্ডের ( BCCI) সভাপতি পদে তাঁর মেয়াদ বাড়ানোর জন্যে কিছু  প্রশাসনিক সংস্কারের প্রয়োজন। ওই সংস্কার হলে তবেই দেশের অন্যতম সফল প্রাক্তন অধিনায়কের নয় মাসের মেয়াদ শেষে কার্যকালের (BCCI President) মেয়াদ বাড়ানো যাবে।  বিসিসিআইয়ের ৮৮ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় শীর্ষ আদালতে (Supreme Court) যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় কেননা ওই প্রশাসনিক সংস্কার করতে হলে আদালতের অনুমোদনের প্রয়োজন হবে। "প্রস্তাবিত সমস্ত সংশোধনীর অনুমোদন করা হয়েছে সভায় এবং এই প্রস্তাব পাসের ব্যাপারে অনুমতি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবে বোর্ড", সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন এক বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা।

বোর্ড সভাপতি পদে সৌরভ ও তাঁর সঙ্গীদের মেয়াদ বৃদ্ধিতে চাপ দিতে পারে BCCI

নিয়ম মতে, কোনও কর্মকর্তা যিনি রাজ্যের ক্রিড়াক্ষেত্রের কোনও পদে বা বিসিসিআই, বা উভয়ের সংমিশ্রণে টানা দুই মেয়াদে (৬ বছর করে এক-একটি মেয়াদ) কোনও পদে অধিষ্ঠিত থাকেন, তবে সেই ব্যক্তি ৩ বছরের কুলিং পিরিয়ডে না থেকে আর কোনও নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না। ওই তিন বছর ওই ব্যক্তি বিসিসিআই বা রাজ্য পর্যায়ের ক্রিড়াক্ষেত্রে কোনও কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পারবেন না।

এখন, বিসিসিআই এমন প্রস্তাব দিতে চাইছে যে কোনও কর্মকর্তী যদি একটানা ৬ বছর বিসিসিআই বা স্টেট অ্যাসোসিয়েশনের হয়ে পদে বহাল থাকেন একমাত্র সেই ক্ষেত্রেই তাঁকে কুলিং পিরিয়ডে যেতে হবে। 

ভারতীয় বোর্ড চায় যে যুগ্মসচিব, সহ সভাপতি এবং কোষাধ্যক্ষকে নিয়ে গঠিত এই নয়া দলটিকে একটানা ৯ বছর কাজ করার  অনুমতি দেওয়া হোক। বিসিসিআই আরও দু'জন প্রভাবশালী কর্তা এই প্রস্তাব দিয়েছেন যে কুলিং পিরিয়ড চালু হওয়ার আগে বোর্ড সভাপতি এবং সহ-সভাপতিকে ৬ বছরের মেয়াদে কাজ করতে দেওয়া হোক।

সৌরভ গাঙ্গুলি, যিনি ২৩ অক্টোবরে বোর্ডের সভাপতি পদে দায়িত্ব গ্রহণ করেন, পরের বছর তাঁকে এই পদ থেকে সরে কুলিং পিরিয়ডে যেতে হবে, কিন্তু এই সংশোধনীর বিষয়ে আদালত অনুমতি দিলে তিনি ২০২৪ পর্যন্ত বোর্ড সভাপতি পদে থাকতে পারবেন।  বর্তমান ব্যবস্থার অনুযায়ী কোনও এক ব্যক্তি পৃথকভাবে বোর্ড এবং রাজ্য সমিতির কর্মকর্তা পদে দুটি মেয়াদ (ছয় বছর) অতিবাহিত করার পরেই নতুন দায়িত্ব নিতে পারেন। 

এই পদক্ষেপটি অনুমোদিত হলে, বোর্ড সচিব জয় শাহের বর্তমান মেয়াদও বৃদ্ধি পাবে, কেননা এই নিয়ম অনুযায়ী তাঁর কার্যকালের মেয়াদ এক বছরেরও কম সময় ।

বিসিসিআই প্রধান হয়েই শুরু দাদার 'দাদাগিরি', প্রশংসার বন্যা

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডও চায় যে সংবিধান সংশোধন সংক্রান্ত ভবিষ্যতের সিদ্ধান্তগুলি আদালতের বাইরেই সম্পন্ন করা হোক এবং বার্ষিক সাধারণ সভায় তিন-চতুর্থাংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার বলে এই সংশোধনের বিষয়ে প্রস্তাব দিয়েছে বিসিসিআই।

বোর্ডের কর্মকর্তারা মনে করেন যে প্রতিটি সংশোধনীর জন্য সুপ্রিম কোর্টের অনুমোদন নেওয়া "বাস্তব উপযোগী" নয়, যা বর্তমানে বিসিসিআইয়ের আইন অনুযায়ী আবশ্যিক ।

Comments
হাইলাইট
  • বিসিসিআই বাধ্যতামূলক সংস্কারগুলির জন্যে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছে
  • সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ৯ মাস কার্যকালের মেয়াদ বাড়াতে চায় বোর্ড
  • ৮৮ তম সাধারণ সভায় এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিল বোর্ড
Advertisement