ক্যান্সার কেড়েছে খেলা, এ বার না হওয়া হানিমুনটা সেরে ফেলতে চান লি

Updated: 13 June 2019 18:51 IST

স্বপ্ন ছিল অলিম্পিক খেলেই অবসর নেবেন কিন্তু শরীর দিল না তাই চোখের জলে বিদায় জানালেন ব্যাডমিন্টনকে।

Badminton Star Lee Chong Wei Early Retires After Cancer Battle
লি চং উই চান বিশ্রাম আর পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে © এএফপি

হঠাৎই একদিন জানতে পেরেছিলেন শরীরে বাসা বেঁধেছে ক্যান্সারের মতো মারন রোগ। ভেবেছিলেন লড়াই করে ফিরে আসবেন তাঁর প্রিয় ব্যাডমিন্টন কোর্টে (Badminton)। আবার ফিরে পাবেন এক নম্বর জায়গা। যে জায়গা তিনি এক সময় টানা ধরে রেখেছিলেন ৩৪৮ সপ্তাহ। কিন্তু জেতা হল না ওয়ার্ল্ড ও অলিম্পিক ফাইনাল। ছ'টি অলিম্পিক ও ওয়ার্ল্ড ফাইনাল হেরেছেন তিনি। এ বার হেরে গেলেন রোগের কাছে। একরাশ যন্ত্রণা নিয়ে অবসর ঘোষণা করতে বাধ্য হলেন। চোখের জল বাধ মানেনি লি চং উইয়ের (Lee Chong Wei)। তিনি বলেন, ‘‘অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়াটা আমার কাছে সহজ ছিল না। আমি এই খেলাটাকে খুব ভাল‌বাসি। কিন্তু এই খেলায় অনেকটা দিতে হয়। গত ১৯ বছরের মালয়েশিয়ানদের থেকে যা সমর্থন পেয়েছি তার জন্য তাদের ধন্যবাদ।'' ৩৬ বছরের লি-র চোখ দিয়ে তখন জল গড়িয়ে নামছিল গালে। বার বার মুছে নিচ্ছিলেন। বন্ধ হয়ে আসছিল গলাও। তিনিও জানেন থামতেই হত।

দুই সন্তানের বাবা লি-র ক্যান্সার ধরা পড়ে গত বছর। তাইওয়ানে দীর্ঘ চিকিৎসার পর তিনি আবার খেলায় ফেরার চেষ্টা করেছিলেন। ভেবেছিলেন পারবেন। নিজেকেই নিজে বার বার সময় দিচ্ছিলেন। 

ক্যান্সারের কথা শুনে কেঁদে ফেলেছিলেন বিশ্বের প্রাক্তন এক নম্বর ব্যাডমিন্টন তারকা

গত এপ্রিলের পর থেকে আর অনুশীলনও করেননি তিনি। পর পর ফেল করেছেন নিজের দেওয়া ডেড লাইনও। আস্তে আস‌তে নিজেই নিজের উপর থেকে আশা হারিয়ে ফেলেন শেষে। ভেবেছিলেন আগামী বছর টোকিও অলিম্পিকের জন্য যোগ্যতা অর্জন করবেন কিন্তু তার জন্য যতটা লড়াই তাঁকে দিতে হবে সেটা তাঁর পক্ষে আর দেওয়া সম্ভব নয়। তাই স্বপ্নটা ছাড়তেই হল।

তিন বারের অলিম্পিকে রুপো জয়ী তারকা জানান, এখন তিনি বিশ্রাম নিতে চান আর তাঁর পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে চান। আর চান স্ত্রীকে হানিমুনে নিয়ে যেতে। যা সেই ২০১২ থেকে করে উঠতে পারেননি তিনি। আজ জীবনের কঠিন সময়ে এসে সেটাই যেন বার বার মনে পড়ছে তাঁর। 

মালয়েশিয়াকে ব্যাডমিন্টনে প্রথম সোনা এনে দিতে চেয়েছিলেন লি। কিন্তু তিন বার ফাইনালে পৌঁছেও তিনি সেটা পারেননি। প্রতিবারই রুপো জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। 

২০১৬ রিও অলিম্পিকের ফাইনালে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর তিনি হার মেনেছিলেন চিনের চেন লংয়ের কাছে। সেটাই শেষ। 

টানা তিনবার অলিম্পিক ফাইনালিস্ট শাটলারের ক্যান্সার, মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন

এর আগেও লি-র কেরিয়ার ধাক্কা খেয়েছিল ২০১৪ ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের সময়। যখন তিনি ডোপিংয়ের দায়ে নির্বাসিত হয়েছিলেন। ২০১৫তে তিনি আবার ফেরেন খেলায়। তদন্তে জানা যায় তিনি ইচ্ছে করে নিষিদ্ধ ড্রাগ নেননি।

তিনি বলে‌ন, ‘‘আমার কোনও অপরাধবোধ নেই। সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ আমার শরীর, তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছনোটা কঠিন ছিল।''

‘‘আমার অবসরের পরিকল্পনা ছিল অলিম্পিকের পর। শরীরের কথা ভেবেই সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।''

‘‘আপনারা জানেন আমি ২০১২তে বিয়ে করি। কিন্তু আমরা কখনও হানিমুনে যাইনি। আমি কথা দিয়েছিলাম আমার স্ত্রীকে। এবার ওকে দেওয়া সেই কথা আমি রাখব।''

মালয়েশিয়া ব্যাডমিন্টন অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট নোরজা জাকারিয়ার মত, লি একজন লিজেন্ড প্লেয়ার। তিনি বলেন, ‘‘এটা খুব দুঃখের দিন। লি একজন লিজেন্ড এবং আমাদের ভরসার মানুষ। কিন্তু ওর সিদ্ধান্তে আমাদের সম্মতি রয়েছে।

এক সময়ের এক নম্বর তারকা আজ দাঁড়িয়ে রয়েছে ১৯১ নম্বরে। এটাও দেখাটা লি-র জন্য খুব কষ্টের ছিল। ‘‘আমি আমার দেশের হয়ে এতদিন লড়াই করেছি। আজ আমার অবসরের দিন,''— গলাটা আবারও বুজে এল লি চং উইয়ের। এটাই হয়তো তাঁর জীবনের শেষ সাংবাদিক সম্মেলন হয়ে থেকে গেল। 

Comments
হাইলাইট
  • চোখের জলে ১৯ বছরের কেরিয়ারকে বিদায় জানালেন লি চং উই
  • গত বছর তাঁর ক্যান্সার ধরা পড়ে
  • ২০১৬তে শেষ অলিম্পিকে খেলেছিলেন তিনি
সম্পর্কিত খবর
থাইল্যান্ড ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে ছিটকে গেলেন সাইনা নেহওয়াল ও কিদাম্বি শ্রীকান্ত
থাইল্যান্ড ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে ছিটকে গেলেন সাইনা নেহওয়াল ও কিদাম্বি শ্রীকান্ত
জাপান ওপেন: কোয়ার্টার ফাইনালেই বিদায় পিভি সিন্ধুর
জাপান ওপেন: কোয়ার্টার ফাইনালেই বিদায় পিভি সিন্ধুর
জাপান ওপেনের শেষ আটে পিভি সিন্ধু ও বি সাই প্রণীথ
জাপান ওপেনের শেষ আটে পিভি সিন্ধু ও বি সাই প্রণীথ
জাপান ওপেনের প্রথম ম্যাচেই কিদাম্বি শ্রীকান্ত হারলেন এইচএস প্রণয়ের কাছে
জাপান ওপেনের প্রথম ম্যাচেই কিদাম্বি শ্রীকান্ত হারলেন এইচএস প্রণয়ের কাছে
Japan Open 2019: কেন্তো নিশিমোতোকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে সাই প্রণীত
Japan Open 2019: কেন্তো নিশিমোতোকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে সাই প্রণীত
Advertisement