এশিয়াডে ইতিহাস গড়ে বন্যায় নিখোঁজ কেরালার সাঁতারুর পরিবার

Updated: 20 August 2018 15:35 IST

এশিয়াডে 32 বছরের মধ্যে এই প্রথমবার কোনও ভারতীয় সাঁতারু ফাইনালে ওঠার কৃতিত্ব দেখায়।  এদিকে, গত 50 বছরে কেরলে সবচেয়ে খারাপ বন্যায় লক্ষাধিক মানুষের জনজীবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

Asian Games  2018: Kerela Swimmer Sajan Prakash

তখন দেশের সম্মান উঁচু করতে ইন্দোনেশিয়ায় তিনি জলের মধ্যে এশিয়ান গেমসে লড়ছেন।  আর তাঁর পরিবার তখন অতল জলে কোথায় আছেন তার খোঁজ তিনি জানেন না। এতবড় চিন্তা নিয়েও ইতিহাস গড়লেন কেরালার সাঁতারু সজন প্রকাশ। জাকার্তা-পালেবমাং এশিয়াডে 200 মিটার বাটারফ্লাই সাঁতারে নেমে রেকর্ড গড়া কেরালার সজন প্রকাশ জানেন না তাঁর পরিবার এখন কেমন আছেন। রবিবার এশিয়াডে 200 মিটার বাটারফ্লাই সাঁতারে ফাইনালে ওঠার পর পাঁচ নম্বরে শেষ করেন কেরালা-র সাঁতারু সজন। এশিয়াডে 32 বছরের মধ্যে এই প্রথমবার কোনও ভারতীয় সাঁতারু ফাইনালে ওঠার কৃতিত্ব দেখায়।  এদিকে, গত 50 বছরে কেরলে সবচেয়ে খারাপ বন্যায় লক্ষাধিক মানুষের জনজীবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  24 বছরের কেরালার সাঁতারু সজন প্রকাশের পরিবার সেই বন্যায় হাজার হাজার মানুষের সঙ্গে বিপদে পড়েছে।

এই বিভাগে সজন জাতীয় রেকর্ড গড়েছেন। কিন্তু কেরালার যে জেলায় সজন থাকেন, সেই ইদুক্কি জেলাতেই বন্যার প্রভাবে সবচেয়ে ক্ষতি হয়েছে। তার ওপর আবার সজনের বাড়ি একটা বাঁধের ধারে। যে বাঁধটা প্রবল বর্ষণে ভেঙে গিয়েছে। কোনওভাবেই সজন তাঁর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না।  1986 এশিয়ান গেমসে কাজান সিংয়ের পর সজনই প্রথম কোনও ভারতীয় যিনি সাঁতারের ফাইনালে উঠলেন। সজন জানান, তিনি শুধু জানতে পেরেছেন, তাঁর পরিবারের মানুষদের সুরক্ষিত জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপর তাদের সঙ্গে আর যোগাযোগ করতে পারছি না। তবে সজনের মা তামিলনাড়ুতে থাকায় বিপদের মধ্যে নেই। ঐতিহাসিক ফাইনালে নেমে সজন 200 মিটার বাটারফ্লাইতে 1:57:15-মিনিটে রেস  শেষ করেন। পঞ্চম হলেও এটি জাতীয় রেকর্ড।      

এ দিকে, অবশেষে বৃষ্টি কিছুটা কমল কেরালায়। প্রায় এক শতাব্দীর মধ্যে এত ভয়াবহ বন্যা দেখেনি এই রাজ্য। গত 8 অগস্ট থেকে হওয়া বন্যায় এই রাজ্যে সরকারি হিসেব অনুযায়ী প্রাণ হারিয়েছেন 300-র বেশি মানুষ। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ 20 হাজার কোটি টাকার বেশি। হাজার হাজার মানুষ এখনও আটকা পড়ে রয়েছেন। উদ্ধারকারীরা উদ্ধারকার্য সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন। রাজ্য এবং কেন্দ্র যৌথ উদ্যোগে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন গোটা দেশের মানুষ। ত্রাণ শিবিরে রয়েছেন ছ’লক্ষের বেশি মানুষ। ওই শিবিরগুলোতে যাতে রোগ ছড়িয়ে না পড়তে পারে, সেটাই এখন প্রশাসনের মূল চিন্তা।   

Comments
সম্পর্কিত খবর
সোনার মেয়ে স্বপ্নার চিকিৎসার দায়িত্ব নিচ্ছে এইমস, প্রকাশ রিপোর্টে
সোনার মেয়ে স্বপ্নার চিকিৎসার দায়িত্ব নিচ্ছে এইমস, প্রকাশ রিপোর্টে
Swapna urges to West  Bengal government : রাজ্য সরকারের কাছে সল্টলেকে বাড়ির আবেদন সোনার মেয়ে স্বপ্না বর্মনের
Swapna urges to West Bengal government : রাজ্য সরকারের কাছে সল্টলেকে বাড়ির আবেদন সোনার মেয়ে স্বপ্না বর্মনের
Asian Games 2018 পদক জিতে ফিরে ফের চায়ের দোকানে কাজ করছেন অ্য়াথলিট
Asian Games 2018 পদক জিতে ফিরে ফের চায়ের দোকানে কাজ করছেন অ্য়াথলিট
দিল্লি সরকার সাহায্য করলে ব্রোঞ্জ নয়, সোনা জিততাম: দিব্যা
দিল্লি সরকার সাহায্য করলে ব্রোঞ্জ নয়, সোনা জিততাম: দিব্যা
সোনা এনে দেওয়া ব্রিজ টিমকে এশিয়াডে পাঠাতেই রাজি ছিল না আইওএ!
সোনা এনে দেওয়া ব্রিজ টিমকে এশিয়াডে পাঠাতেই রাজি ছিল না আইওএ!
Advertisement