জানেন জলপাইগুড়ির স্বপ্না যখন সোনা জিতছেন, তখন তাঁর মা কী করছিলেন

Updated: 30 August 2018 12:39 IST

বছর পাঁচেক আগে ব্রেন স্ট্রোকের পর থেকে স্বপ্নার বাবা এখনও শয্যাশায়ী।  বড় দাদা রাজমিস্ত্রি, ছোট দাদা দিনমজুর। এভাবেই চলে সংসার।

Asian Games 2018: How Jalpaiguri Celebrates After Swapna Barman
এশিয়াডে স্বপ্নার ঐতিহাসিক সোনা © এএফপি

তিনি এখন হেপ্টাথলন কুইন। এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে হেপ্টাথলনে দেশের প্রথম সোনার পদক জয়ের পর জলপাইগুড়ির স্বপ্না বর্মন এখন গোটা দেশের আইডল বনে গিয়েছেন। স্বপ্না যখন শেষ ইভেন্টে খেলছেন তখন গোটা জলপাইগুড়ির দুরদুরে বুকে টিভির সামনে। সোনা জিততেই জলপাইগুড়ি জুড়ে শুরু উচ্ছ্বাস। জলপাইগুড়ি শহর লাগোয়া পাতকাটার ঘোষপাড়ায় নিজের বাড়িতে বসে স্বপ্নার মা বাসনা বর্মন আনন্দে চোখে জল নিয়ে কিছু কথা বলতে পারছিলেন না। স্বপ্নার মা বলছেন, সারাদিন নিজেকে কালীমন্দিরে বন্দি করে ওর জন্য প্রার্থনা করে গিয়েছে। ওই কালীমন্দিরটা স্বপ্নাই তৈরি কর দিয়েছে বলে বাসনা দেবী বললেন। সংবাদসংস্থা আইএএনএস-কে দেওয়ার ইন্টারভিউয়ে স্বপ্নার মা বললেন, ''আমি ওর খেলা দেখিনি। দুপুর দুটো থেকে কালী মায়ের সামনে প্রার্থনা বসেছিলাম। ও মন্দিরটা করে দিয়েছিল। মা কালীর ওপর আমার খুব ভক্তি। জানতাম ঠাকুর আশীর্বাদ আর ওর পরিশ্রমে ভাল কিছু একটা হবেই। যখন ভাল খবরটা পেলাম, নিজের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারছিলাম না।'' স্বপ্নার বাবা ভ্যান চালাতেন।  কিন্তু বছর পাঁচেক আগে ব্রেন স্ট্রোকের পর থেকে স্বপ্নার বাবা এখনও শয্যাশায়ী। বড় দাদা রাজমিস্ত্রি, ছোট দাদা দিনমজুর। এভাবেই চলে সংসার।

এদিকে, স্বপ্নার জয়ের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শুভেেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ''দারুণ এক প্রতিভাবান অ্যাথলিট। সম্মানজনক পদক জিতে দেশের নাম উজ্জ্বল করল। গোটা দেশ স্বপ্নার জন্য গর্বিত। এই সাফল্য ওর প্রতিভাকে প্রমাণ করল।'' মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "আমাদের ভারত ও বাংলার হেপ্টাথলন রানিকে অনেক অভিনন্দন। তুমি আমাদের গর্বিত করেছো।|" সোনা জয়ের পর স্বপ্না বললেন, ''পদক জেতার পরেই সবার আগে বাবা-মায়ের কথা মনে হচ্ছিল। জ্যাভেলিনের পর বুঝেছিলাম সোনাটা আমিই পাচ্ছি।''এখানেই থেমে না থেকে এবার অলিম্পিকে ভাল ফল করতে মরিয়া স্বপ্না। তবে তার আগে মুম্বই যাচ্ছেন চিকিতস চিকিৎসা করাতে।

অ্যাথলেটিক্সের কঠিনতম বিভাগে এশিয়ার নামকরা হেপ্টাথলিটদেের হারিয়ে সোনা জিতলেন স্বপ্না। জলপাইগুড়ি শহর থেকে প্রায় 10 কিলোমিটারের গ্রাম পাতকাঁটায় বাড়ি স্বপ্নার। সেখান থেকে সব প্রতিকূলতা ঝেড়ে ফেলে সোনা জিতলেন স্বপ্না। মোট 6 হাজার 826 পয়েন্ট সংগ্রহ করে চিনের হেপ্টাথলিট ওয়াং কুইলিং (5954 পয়েন্ট)।  100 মিটার হার্ডলস, হাইজাম্প, লং জাম্প, শটপুট, 200 মিটার, 800 মিটার ট্র্যাক, জ্যাভেলিন থ্রো-এই 7টা ইভেন্ট নিয়ে হয় হেপ্টাথলিন। হাইজাম্প, জ্যাভলিন থ্রোয়ে সবার আগে থাকেন স্বপ্না। শটপুট, লংজাম্পে হন দ্বিতীয়। গত বছর এশিয়ান অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতেছিলেন স্বপ্না। 

Comments
হাইলাইট
  • স্বপ্না বর্মনের সোনার খবরে রাজ্যের ক্রীড়ামহলে খুশির হাওয়া
  • হেপ্টাথলনে এশিয়াডে এই প্রথম সোনা জিতলেন কোনও ভারতীয়
  • 2002 এশিয়াডে রুপো জেতেন বাংলার সোমা বিশ্বাস
সম্পর্কিত খবর
পরিবারের বিরুদ্ধে আইনি পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত দ্যুতি চাঁদের
পরিবারের বিরুদ্ধে আইনি পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত দ্যুতি চাঁদের
মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক রেখে পরিবারের মধ্যেই সমস্যায় দ্যুতি চাঁদ
মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক রেখে পরিবারের মধ্যেই সমস্যায় দ্যুতি চাঁদ
ক্রীড়ানীতির অভাবের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে একহাত নিলেন স্বপ্না বর্মনের কোচ
ক্রীড়ানীতির অভাবের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে একহাত নিলেন স্বপ্না বর্মনের কোচ
ভারতীয় অ্যাথলেটিক্সে আবার লজ্জা, এ বার ডোপ টেস্টে ফেল করলেন পাঁচজন
ভারতীয় অ্যাথলেটিক্সে আবার লজ্জা, এ বার ডোপ টেস্টে ফেল করলেন পাঁচজন
হস্টেলের ঘরে বোনের সামনেই আত্মহত্যা অ্যাথলিটের
হস্টেলের ঘরে বোনের সামনেই আত্মহত্যা অ্যাথলিটের
Advertisement