ভারতকে হারানোর শুরুটা হয়েছিল একটা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে

Updated: 25 August 2018 12:37 IST

কবাডিতে এখন ভারতের কাছ থেকে সিংহাসন কেড়ে নিয়েছে ইরান। জানেন কী আর মহিলা কবাডিতে ইরানের সিংহাসনে বসার পিছনে আছেন এক ভারতীয় মহিলা।

Asian Games 2018: How Iran Beat India In Final
পুরুষ, মহিলা দুটো বিভাগেই সোনা জেতে ইরান © এএফপি

কবাডিতে ভারতের একচেটিয়া রাজত্বের অবসান। এই প্রথমবার কবাডিতে কোনও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট থেকে সোনা ছাড়াই ফিরছে ভারত। পুরুষ, মহিলা দুটো বিভাগে দেশের কবাডি দল সোনা হারা হয়েছ। পুরুষ দল টানা সাতবার সোনা জেতার পর এবার জার্কাতায় সেমিফাইনালে ইরানের কাছে হেরে ব্রোঞ্জ পায়। আর দেশের মহিলা দল ফাইনালে ইরানের কাছে হেরে রুপো জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। কবাডিতে এখন ভারতের কাছ থেকে সিংহাসন কেড়ে নিয়েছে ইরান। জানেন কী আর মহিলা কবাডিতে ইরানের সিংহাসনে বসার পিছনে আছেন এক ভারতীয় মহিলা। ইরানের মহিলা কবাডি দলের কোচ হলেন ভারতের শৈলাজা জৈন। গত তিন দশক ধরে যিনি মহারাষ্ট্রে অনেক খুদেদের ট্রেনিং দিয়ে প্রতিভা তুলে আনার চেষ্টা  করছেন। সেই শৈলাজাকেই মহিলা দলের দায়িত্ব দেওয়া হয়। সেই সময় ইরানের কবাডি দলের অবস্থা মোটেও ভাল ছিল না। ভারতকে হারানোর স্বপ্নটা শুধু ইরানীয়ান মহিলাদের ঘুমের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকত।  

শৈলাজা ফাইনালে ভারতের বিরুদ্ধে নামার আগে দলের মেয়েদের বলেছিলেন, ''আমিকে সোনার পদক উপহার দিয়ে তবে দেশে পাঠিও।'' ভারতকে হারিয়ে সোনা জেতার পর ইরানের মহিলারা কাঁধে তুলে নেন কোচ শৈলাজা। আর বলতে থাকেন, এই নাও তোমার সোনার পদকের উপহারটা...

শৈলাজা বলছেন, ''সোনা জেতার পথটা বেশ কঠিন ছিল। প্রথমে যখন আমি ইরানে পা দিয়ে আমার চ্যালেঞ্জ ছিল আমি যে ভাল কোচ সেটা প্রমাণ করা। সেটা শেষ অবধি প্রমাণ হল।''  সোনা জয়ের আনন্দে ইরানের মহিলা দলের ভারতীয় কোচ শৈলজার চোখে তখন জল, হাত থেকে নোটবুকটা পড়ে যাচ্ছিল। নিজেকে সামলে নিয়ে বললেন। প্রথমে আমি 40-42 জনের দলকে নিয়ে কাজ শুরু করি। তারপর সেখান থেকে এখন এখন আমি ও 12 জনের দল। সবাই খুব পরিশ্রম করছে। আমি ওদের প্রাণায়ম, যোগ ব্যায়াম করিয়ে মনোসংযোগ বাড়াতাম। জানতাম মনসংযোগ হল সোনা জেতার পথে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মোড়। তবে সবার আগে আমি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ করি যেখানে প্রতিদিন আমি মনোবল বাড়ানোর একটা পোস্ট পাঠাতাম। এভাবে আত্মবিশ্বাসটা ছড়িয়ে পড়ে। দলের সবাই নিজেদের মতামত বাড়তে থাকে। সে সবই সোনায় পরিণত হল। ইরানের এক খেলোয়াড় পরে জানান, তাদের সেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের নাম ছিল..মিশন গোল্ড। শৈলাজা জানান, তিনি ডিফেন্সের দিকেই বেশি জোর দেন। আর ইরানের ডিফেন্সকে নিয়েই সবচেয়ে প্রশংসা হয়। প্রসঙ্গত, মহিলাদের পাশাপাশি ইরানের পুরুষ দলও কবাডিতে সোনা জেতে। ফাইনালে ইরানের পুরুষ দল হারায় দক্ষিণ কোরিয়াকে।  

Comments
সম্পর্কিত খবর
পবন শেরাওয়াতের দাপটে গুজরাতকে হারিয়ে প্রো-কবাডি লিগ বেঙ্গালুরুর
পবন শেরাওয়াতের দাপটে গুজরাতকে হারিয়ে প্রো-কবাডি লিগ বেঙ্গালুরুর
প্রো কবাডি লিগ: পুণে-বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে জয় তুলে নিল গুজরাত-বাংলা
প্রো কবাডি লিগ: পুণে-বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে জয় তুলে নিল গুজরাত-বাংলা
ভারতকে হারানোর শুরুটা হয়েছিল একটা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে
ভারতকে হারানোর শুরুটা হয়েছিল একটা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে
কবাডিতে সোনা হারা ভারত, ফাইনালে সেই ইরানের কাছে হার মহিলা দলের
কবাডিতে সোনা হারা ভারত, ফাইনালে সেই ইরানের কাছে হার মহিলা দলের
অলিম্পিকে খুব তাড়াতাড়ি খেলা হবে কবাডি, আশায় কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী
অলিম্পিকে খুব তাড়াতাড়ি খেলা হবে কবাডি, আশায় কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী
Advertisement